লকডাউনে বিসিকের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে

বিসিক শিল্প নগরীগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎপাদন অব্যাহত থাকবে। বিসিকের চেয়ারম্যান মোশতাক হাসান বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানিয়েছেন, গত বছর করোনাকালে দেওয়া লকডাউনেও বিসিকের কর্মীরা কাজ করেছে। কারণ দেশের অক্সিজেনসহ আটা, ময়দা, সুজি ও মধু উৎপাদনকারী শিল্প বিসিক শিল্প নগরীতে অবস্থিত। তবে সরকারের দেওয়া ১৮ দফা স্বাস্থ্যবিধি শতভাগ মেনে বিসিক শিল্প নগরী চলবে। এক্ষেত্রে আমাদের পলিসি হচ্ছে শিল্প নগরীর ভেতরেই শ্রমিকদের আবাসন নিশ্চিত করা। অল্প কিছু শিল্প নগরীর বাইরে থেকে এলে তাদের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন করা। গত বছরও আমরা সেটি করেছিলাম। এ বিষয়টি ইতিমধ্যেই শিল্প নগরীর কারখানা মালিকদেরকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছি।

বিসিক সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় কর্তৃক ১৮ দফা নির্দেশনা প্রতিপালন করে বিসিক শিল্প-নগরীর কার্যক্রম অব্যাহত রাখার নিদর্শনা দেওয়া হয়। এছাড়া বিসিক শিল্প-নগরীর জন্য অনুসরণীয় স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা প্রোটোকল প্রতিপালন করে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য, করোনা প্রতিরোধমূলক পণ্য, কৃষি ও কৃষিজাত পণ্য এবং ওষুধ সামগ্রীসহ অন্যান্য পণ্য উৎপাদন অব্যাহত রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিসিক বলেছে, জরুরি সেবায় নিয়োজিত কারখানা ছাড়া বিসিক শিল্প-নগরীর শিল্পকারখানাসমূহ ৫০ ভাগ জনবল দ্বারা পরিচালনা করতে হবে। গর্ভবতী, অসুস্থ, বয়স ৫৫ উপরে কর্মকর্তা বা কর্মচারীর বাড়িতে অবস্থান করে কর্মসম্পাদনের ব্যবস্থা করতে হবে এবং বেতন ভাতাদি প্রদান নিশ্চিত করতে হবে।

বিসিক শিল্প-নগরীর জন্য অনুসরণীয় স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা প্রোটোকলসমূহ নিয়মিত প্রতিপালন করছে কিনা তা মনিটরিং করার জন্য কারখানা পর্যায়ে, শিল্প-নগরী পর্যায়ে, এবং বিসিক প্রধান কার্যালয় থেকে গঠিত কেন্দ্রীয় মনিটরিং কমিটি নিয়মিত মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন।